স্তন্যদানের সঠিক কায়দাকানুন

স্তন্যদানের সঠিক কায়দাকানুন

 

এই নিবন্ধটি বর্তমানে IAP বিশেষজ্ঞদের দ্বারা পর্যালোচনা অধীনে; এখনো সম্পাদিত এবং অনুমোদিত এবং প্রযুক্তিগত এবং ভাষা ত্রুটি থাকতে পারে। দয়া করে এখানে ক্লিক করে সংশোধন এবং অনুমোদিত ইংরেজি সংস্করণ পড়ুন।

স্তন্যপান শুধু শিশুর স্বাস্থ্যের জন্যই নয়, মায়ের পক্ষেও সমান গুরুত্বপূর্ণ। জন্মের প্রথম ৬ মাস তো বটেই, এমনকী প্রথম ১ বছরকাল পর্যন্তও শিশুর পর্যাপ্ত পুষ্টিসাধনের জন্য শুধুমাত্র মায়ের বুকের দুধই যথেষ্ট, অবশ্যই মা যদি সম্পূর্ণ সুস্থ থাকেন তবেই। মায়ের দুধে শিশুদেহের চাহিদা অনুযায়ী পর্যাপ্ত পরিমাণে পৌষ্টিক উপাদান, ভিটামিন ও মিনারেল থাকে; তাছাড়া নিউমোনিয়া, পেটের অসুখ, কানের সংক্রমণ এবং অ্যালার্জি থেকে শিশুকে সুরক্ষিতও রাখে তা।

অন্যদিকে মায়ের ক্ষেত্রে, শিশুজন্মের পর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের হাত থেকে সুরক্ষিত রাখে স্তন্যদান, তাছাড়া স্তন ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা কমায়, আগে হয়ে থাকলে আবার হওয়ার সম্ভাবনাও কমায়। মায়ের স্বাস্থ্যের জন্যই শুধু নয়, মা ও শিশুর মধ্যে ভালোবাসার বন্ধনটি মজবুত করার ক্ষেত্রে স্তন্যপানের ভূমিকা ভীষণই গুরুত্বপূর্ণ। স্তন্যপানের আরও সুবিধা হল, এটি একটি প্রাকৃতিক গর্ভনিরোধক হিসেবে কাজ করে এবং দুই সন্তানের মাঝের সময়ের দূরত্বটি বজায় রাখতে সাহায্য করে; এমনকী গর্ভধারণের সময় জমা হওয়া অতিরিক্ত মেদ ঝরিয়ে ফেলার ক্ষেত্রেও সাহায্য করে তা। ৬ মাসের পর থেকে যত দিন না মাই ছাড়ানো বা বাচ্চার বুকের দুধ খাওয়ার অভ্যাস সম্পূর্ণ বন্ধ করানো না হচ্ছে, তত দিন বুকের দুধের পাশাপাশি অন্যান্য খাবার খাওয়ানো শুরু করতে হতে পারে।

স্তন্যদানের জন্য কী ভাবে প্রস্তুতি নেবেন

স্তন্যপান করানোর জন্য অবশ্যপালনীয় কোনও নিয়ম সে ভাবে নেই, তবে কিছু কিছু জিনিস মেনে চললে নতুন মায়েদের পক্ষে অভিজ্ঞতাটা অপেক্ষাকৃত সহজ হয়। কোনও বিষয়ে প্রশ্ন বা ভয় থাকলে ডাক্তার বা ধাইমা-র পরামর্শ নিতে সঙ্কোচ করবেন না। পরিবার বা বন্ধুবান্ধবদের মধ্যে যাঁদের পূর্ব অভিজ্ঞতা আছে, তাঁদের সঙ্গে কথা বললেও মানসিক ভাবে অনেকটা সাহায্য হয় এ সময়ে।

গর্ভাবস্থা শেষ হওয়ার পর আপনার প্রথম কাজ হল, আরামদায়ক এবং সামনের দিকে খোলা যায় এমন কিছু ব্রেসিয়ার কিনে রাখা। গর্ভাবস্থার শেষের দিকে এসে নিয়মিত আলতো করে বুক মালিশ করার অভ্যাস করতে পারেন, এতে দুগ্ধনালীগুলির আড় ভাংতে এবং মসৃণ করতে সাহায্য হবে। শিশুর জন্মের পর সঙ্গে সঙ্গেই স্তন্যপান করাতে শুরু করুন, এতে পরিবর্তনটার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া সহজতর হয়। এমন পোশাক পরুন যা সহজেই সরানো বা খুলে ফেলা যায়; যেমন আলগা শার্ট, ব্লাউজ, সামনে বোতাম দেওয়া কামিজ ইত্যাদি। এতে শিশুকে দুধ খাওয়াতে সুবিধা হবে। দুধ খাওানোর সময় অবশ্যই আরাম করে বসুন, দরকার হলে পিঠে বালিশ বা কুশন দিয়ে রাখুন।

প্রথমবার স্তন্যদান

জন্মের ঠিক পরে প্রথম যে দুধ উৎপন্ন হয় তার পোশাকি নাম কলোস্ট্রাম। গাঢ় এবং হলদেটে রঙের এই তরল ইমিউনোগ্লোবিউলিন-এ পরিপূর্ণ, যা আপনার শিশুকে নানা ধরণের সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে। এই তরল অল্প অল্প পরিমাণে উৎসারিত হয়, এবং শিশুর জন্য এটি অপরিহার্য। কয়েক দিন পরে দুধের চরিত্র কিছুটা বদলে যাবে, এবং শিশুর মলের কিছুটা পরিবর্তন লক্ষ্য করবেন। এটা পুরোপুরি স্বাভাবিক। শিশুর বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এবং তার মাত্রা অনুসারে এই পরিবর্তন ঘটে, কাজেই শিশুদেহের চাহিদার সঙ্গে এই বদল সম্পূর্ণ মানানসই।

প্রথম বার শিশুকে দুধ খাওয়ানোর সময় আরামদায়ক ভাবে এবং পিঠে বালিশ বা কুশন রেখে বসুন। শিশুকে বুকে নেওয়ার সময় লক্ষ্য রাখুন তার বুক যেন আপনার শরীরকে স্পর্শ করে। শিশুর মুখে নিজের স্তন দিন, আর সে মুখ খুলতে শুরু করলে সাবধানে স্তন তার মুখে প্রবেশ করান। খেয়াল রাখুন, শুধু স্তনবৃন্ত নয়, আপনার এরোলা বা বৃন্তের চারপাশের গাঢ় রঙের এলাকাটিও যেন শিশুর মুখের ভিতর থাকে।

সঠিক ভাবে স্তন্যদানের উপায়

প্রথম বার দুধ খাওয়ানোর সময় খেয়াল রাখুন শিশু ও আপনার ত্বক যেন যথাসম্ভব স্পর্শ করে থাকে; এটি দুধের উৎপাদন বাড়ায়। শিশুর খিদে পাওয়ার লক্ষণগুলির জন্য সব সময় তার দিকে নজর রাখুন; যেমন বিরক্ত হওয়া, অস্থির হয়ে ছটফট করা, বুড়ো আঙুল চোষা বা স্তনবৃন্তের খোঁজ করা। কেঁদে ওঠার জন্য অপেক্ষা করবেন না, কান্না অনেক পরে আসে। শিশু পর্যাপ্ত খাচ্ছে কিনা তা বোঝবার সবচেয়ে নিশ্চিত উপায় হল তার ওজন বৃদ্ধি পাওয়া। এক যদি না কোনও শারীরিক সমস্যার কারণে প্রয়োজন হয়, চুষিকাঠি বা এই ধরণের কৃত্রিম কোনও জিনিস ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

দুধ খাওয়াতে গিয়ে ব্যথা লাগলে আলতো করে শিশুর মুখ থেকে স্তন সরিয়ে নিয়ে আবার চেষ্টা করুন, কারণ ঠিকমত খাওয়ালে ব্যথা লাগার কথা নয়। তাও যদি ব্যথা থেকে যায় তাহলে ডাক্তার বা নার্সের পরামর্শ নিন, বাড়িতে থাকলে দুধ খাওয়ানোর অভিজ্ঞতা আছে এমন কারও সাহায্য নিন। স্তন্যপান করানোর সময়কালটা স্বাস্থ্যকর আহার করুন এবং প্রচুর জল খান, কারণ আপনার সুস্থ থাকার উপরেই আপনার শিশুর স্বাস্থ্য নির্ভর করছে।

প্রথম প্রথম, প্রতি ২-৩ ঘণ্টা অন্তর অন্তর শিশুর দুধ খাওয়ার প্রয়োজন পড়বে। শিশু বাড়তে থাকার সঙ্গে সঙ্গে দু’বার খাওয়ানোর মধ্যেকার সময়কালও বাড়তে থাকবে, যা কিনা সঠিক ভাবে স্তন্যপান করানোর অন্যতম লক্ষণ। প্রথম কিছু সপ্তাহে নজর রাখতে হবে যে খাওয়ানোর সময় শিশু যেন জেগে থাকে, কারণ স্তন মুখে দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই শিশুর ঘুমিয়ে পড়ার একটা প্রবণতা থাকে। কিন্তু এটা হলে তার খাওয়ার পরিমাণ কম হবে, যা প্রভাব ফেলবে বৃদ্ধিতে।

কখন সাহায্য নেবেন

দুধ খাওয়ানোর সময় অতিরিক্ত কান্নাকাটি বা যন্ত্রণার মত সমস্যা যদি লেগেই থাকে, তাহলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞর পরামর্শ নিন। আপনার ভুলের জন্যই এমন হচ্ছে কিনা এই ধরণের দুশ্চিন্তা থেকেও এর ফলে রেহাই পাওয়া যাবে। কারণ, অনেক সময়েই ভুল স্তন্যপানের কায়দা ছাড়াও শিশুর বিরক্তি বা স্তনের যন্ত্রণার অন্য কারণ থাকতে পারে, যেমন স্তনের সংক্রমণ। তাতে শুধু আপনার স্বাস্থ্যই ক্ষতিগ্রস্ত হবে না, আপনার শিশুর প্রাণসংশয় পর্যন্ত হতে পারে।

উপসংহার

স্তন্যপান একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া, যা মা ও শিশুর মধ্যে একটা মজবুত বন্ধন গড়ে তুলতে সাহায্য করে, এবং একইসঙ্গে উভয়ের সুস্থতার পক্ষেই অপরিহার্য। শিশুকে সংক্রমণ থেকে রক্ষা করার জন্য জন্মের অব্যবহিত পরেই তাকে বুকের দুধ খাওয়াতে শুরু করা জরুরি। যে কোনও ধরণের সংশয় বা সন্দেহ থাকলে প্রশিক্ষিত বিশেষজ্ঞ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে দ্বিধা করবেন না।

তথ্যসূত্র:

31 Breastfeeding Secrets. (2018). Parents. Retrieved 19 March 2018, from https://www.parents.com/baby/breastfeeding/tips/31-breastfeeding-secrets/

breastfeed, H. (2018). Breastfeeding for beginners. BabyCentre UK. Retrieved 19 March 2018, from https://www.babycentre.co.uk/a613/breastfeeding-for-beginners

Breastfeeding Tips for New Moms | HealthyWomen. (2018). Healthywomen.org. Retrieved 19 March 2018, from https://www.healthywomen.org/content/article/breastfeeding-tips-new-moms

Canada, P. (2018). Ten Valuable Tips for Successful Breastfeeding – Canada.ca. Canada.ca. Retrieved 19 March 2018, from https://www.canada.ca/en/public-health/services/health-promotion/childhood-adolescence/stages-childhood/infancy-birth-two-years/breastfeeding-infant-nutrition/valuable-tips-successful-breastfeeding.html

Early initiation of breastfeeding to promote exclusive breastfeeding. (2018). World Health Organization. Retrieved 19 March 2018, from https://www.who.int/elena/titles/early_breastfeeding/en/

Mayor, S. (2018). Breast feeding reduces risk of breast cancer recurrence, study finds. Retrieved 19 March 2018, from

The surgeon general’s call to action to support breastfeeding, 2011. (2011) (p. The Importance of Breastfeeding). Rockville, MD.